ব্রেকিং

x

নেইমার মেসি রোনালদোরা কি ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিয়াজ মুহম্মদ স্টেডিয়ামে?

শুক্রবার, ২৭ জুলাই ২০১৮ | ৭:০৪ অপরাহ্ণ | 773 বার

নেইমার মেসি রোনালদোরা কি ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিয়াজ মুহম্মদ স্টেডিয়ামে?

বিশ্বকাপের জ্বরটা তাপহীন মাত্রায় বইছে এখনো। অবসরপ্রাপ্ত চাকুরীজীবির মতোই টিভির রিমোর্ট ঘুড়াই স্পোর্টস চ্যানেলে এখন বিশ্বকাপের ফুটবল খেলার পুনঃপ্রচার দেখতে। ফুটবলে খেলোয়ারের চেয়ে দর্শকদের উত্তেজনা আনন্দ আবেগ অবদানই বেশী। কি না হয়েছে ব্রাজিল আর্জেনটিনা ইত্যাদী দলগুলোর সমর্থন নিয়ে। বাড়িতে বাড়িতে পতাকাগুলো এখনও নামেনি। অভিমান রাগ গোস্বা এখনও রয়েছে। আসলেই দর্শকরাই ফুটবলের জনপ্রিয়তা আর অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার উৎস। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান মহোদয় সেদিন এক অনুষ্ঠানে জানালেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২য় বিভাগ ফুটবলের আসর জমছে। জেলা প্রশাসক মহোদয় ফুটবলের জনপ্রিয়তা বাড়াতে বেশীই আন্তরিক, নানাভাবেই চেষ্টাও করছেন। পরে জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি ইউসুফ কবীর ফারুক ভাই সাধারণ সম্পাদক মহিম চৌধুরীর সঙ্গে কথা হলো। ২৮ জুলাই শুরু হচ্ছে নিয়াজ মুহম্মদ স্টেডিয়ামে ফুটবল লীগ। তাদের বল্লাম এবার দর্শক পাবেন বেশী। একজন দীর্ঘশ্বাস ফেললেন।
আসলে বিশ্বকাপের আমেজটা এখনও আছে। আমি তো বলেই খালাস, পরে ভাবলাম , আসলে কি আমরা সেই আমেজ স্থানীয়ভাবে দেখাতে পারি? ভাবনায় আমার নানা কিছু , মনে প্রশ্ন নেইমার মেসি আর রোনালডো তারা কি ভাবে সৃস্টি হলেন ? তারা যে মাঠে খেলা করে বেড়ে উঠেছে, সে মাঠ কি আমাদের নিয়াজ মুহম্মদ স্টেডিয়াম থেকে বড় , বিশাল, অথবা অন্য কিছু দিয়ে তৈরী ? মায়ের পেট থেকেই কি তারা ফুটবল শিখে এসেছে? সবাই কি কোটি পতি পরিবারের ? সব প্রশ্নের উত্তরই না। আমাদের নিয়াজ মুহম্মদ স্টেডিয়াম আর সাধারণ মাঠেই খেলা শিখে তারা বিশ্বকাপের মাঠে গিয়েছে। তবে তাদের ক্ষেত্রে ছিল নিজস্ব আগ্রহ চেষ্টা ,অণুশীলন, পরিবেশ, অণুপ্রেরণা দর্শকদের উৎসাহ সমর্থন। এখন প্রশ্ন আমরা কি স্থানীয় পর্যায়ের খেলোয়ারদের এসব দিতে পারছি।
দুঃখ জনক হলেও সত্যি স্টেডিয়াম আছে , আছে গ্যালারী, রেফারী বাঁশী ফুটবল সবই আছে, অণুশীলনও হয় শুধু ঘাটতি অণুপ্রেরণার। গ্যালারী আছে দর্শক নেই, নিজ পাড়া নিজ এলাকা এমনকি নিজ সন্তানের খেলা দেখতেই আমরা অনেকেই মাঠে যাই না। নিজ এলাকার ফুটবল দলের পতাকা উড়ানো তো দূরের কথা,পাড়ার বা ঘরের কোন সন্তানটি ফুটবলের প্রতি আগ্রহী সেই খবরই রাখি না। ফুটবলের দলগুলোকে করিনা পৃষ্টপোষকতা।
কথায় কথায় মহিম চৌধুরী বল্লেন, এবার নেইমার মেসি আর রোনালডো খেলবে নিয়াজ স্টেডিয়ামে। তিনি বলতে চেয়েছেন উল্লেখিত ৪ জন জীবনে প্রারম্ভিক খেলায় যে ভাবে মাঠে নেমেছেন ঠিক তেমনই ভাবে আমাদের নতুন প্রজন্মের খেলোয়াররা মাঠে নামবে। ভাবলাম সত্যিইতো নতুনরাই করে বিশ্ব জয় ,তাদের অণুপ্রেরণা পরিচর্যা করলেই উৎসাহ সমর্থন দিয়ে এগিয়ে দিলেই হলো। মাঠে গিয়ে ফুটবলকে সমর্র্থন দিলে সেই পরিবেশ সৃস্টি করলে বিশ্বকাপে এই নতুনরা খেলা করতেও পারে। আমার চোখ ভরা স্বপ্ন, দেখছি আমাদের খেলোয়াররা খেলছে বিশ্বকাপের আসরে লাল সবুজ জার্সি পরে, মাঠ ভরা বাঙ্গালী লাল সবুজের আচ্ছাদনে,মুখে বুকে লাল সবুজের চিহ্ন। ভিনদেশে উড়ছে আমাদের গৌরবের লাল সবুজ জাতীয় পতাকা। যা হোক অনেক স্বপ্নই সফল হয়। নিয়াজ মুহম্মদ স্টেডিয়ামে ২৮ জুলাই শনিবার উদ্বোধন হচ্ছে ২য় বিভাগ ফুবল লীগ। এতে খেলবে ১০ টি দল। আশা করছি এ আয়োজনে দর্শকরা থাকবেন মাঠে। আমি নিশ্চিত খেলোয়ারদের কেউ না কেউ মেসি নেইমার আর রোনালডোর মতোই ক্রীড়া নৈপুন্য দেখাতে পারবে। ফুটবলের প্রতি একটু সমর্থন যদি আমাদের বিশ্ব দরবারে নিতে পারে তা দিতে কাপণ্য না দেখিয়ে আসুন স্থানীয় পর্যায়ের ফুটবলের আয়োজন গুলোকে আমরা সমৃদ্ধ করি।সরব উপস্থিতিতে মুখরিত করি ফুটবলের মাঠ।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

আখাউড়ানিউজ.কমে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, কপিরাইট আইন অনুযায়ী পূর্বানুমতি ছাড়া কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!