ব্রেকিং

x

উন্নয়নে বদলে গেছে দক্ষিণের জনপদ

শুক্রবার, ০৯ মার্চ ২০১৮ | ১০:৪৮ অপরাহ্ণ | 670 বার

উন্নয়নে বদলে গেছে দক্ষিণের জনপদ

সারাদেশে উন্নয়নের পথযাত্রায় বরিশাল হতে চলেছে বাংলাদেশের সিঙ্গাপুর! চলমান বিভিন্ন প্রকল্পে হাজারো মানুষের কর্মসংস্থানের মাধ্যমে সিঙ্গাপুরের মতো বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ মাথাপিছু আয়ের শহর হতে পারে বরিশাল- এমন আশাবাদ উন্নয়ন-সংশ্লিষ্টদের। বরিশালের সমুদ্রবন্দর আর পর্যটন শিল্পকে ঘিরে এমনসব কর্মযজ্ঞ চলছে— যা কখনো কেউ দেখেনি।

সাগর বিধৌত নদী বেষ্টিত দক্ষিনাঞ্চলে রেলপথ নির্মাণ করবে সরকার । নির্মাণাধীন পদ্মাসেতুর কল্যাণে সরাসরি রেলপথ যাবে ঢাকা থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা হয়ে বরিশাল দিয়ে পটুয়াখালীর পায়রা সমুদ্রবন্দর পর্যন্ত । রেললাইন নির্মাণের জন্য সম্ভাব্যতা সমীক্ষা প্রকল্পের প্রিলিমিনারি ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট প্রপোজাল “পিডিপিপি” প্রস্তুত করা হয়েছে। পিডিপিপি অনুযায়ী প্রকল্পের সম্ভাব্য ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে ৯ হাজার ৯৯০ কোটি টাকা। এর মধ্যে সরকারের নিজ অর্থায়ন ১ হাজার ৯৯৮ কোটি টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য ধরা হয়েছে ৭ হাজার ৯৯২ কোটি টাকা। প্রকল্পের বাস্তবায়নকাল ২০১৭ সালের জুলাই থেকে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত।

চলতি বছর কলাপাড়া, হাজীপুর এবং মহিপুর পয়েন্টের সেতু সর্ব সাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। শুরু হয়েছে লেবুখালীর পায়রা নদীর ওপর সেতু নির্মাণের কাজ। এইসঙ্গে দেশের সবচেয়ে বৃহৎ প্রকল্প পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে। বরিশাল-ঢাকা রুটে চলাচল করছে বিলাসবহুল অত্যাধুনিক নৌযান। সরকারের বর্তমান মেয়াদে বরিশাল-ঢাকা আকাশ পথে রাষ্টীয় পতাকাবাহী বিমান ছাড়াও চলাচল করছে বেসরকারি ইউএস বাংলা এবং নভো এয়ারের বিমান। শুধু তাই নয়, দ্রুত কুয়াকাটা এবং পায়রা বন্দরকে রেলওয়ে নেটওয়ার্কের মধ্যে আনার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

পর্যটনে কুয়াকাটা তথা বরিশাল হবে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু।শুধু পর্যটনই নয়, বাংলাদেশের তৃতীয় বাণিজ্যিক সমুদ্র বন্দর হিসেবে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে পায়রা; পদ্মা সেতু নির্মাণের পর এই সমুদ্র বন্দরটি দক্ষিণ জনপদের অর্থনীতির চিত্র বদলে দেবে বলে মনে করা হচ্ছে।

একই স্থানে দাঁড়িয়ে সূর্যাস্ত আর সূর্যোদয় দেখার বিরল সুযোগ রয়েছে জাপানে। ঠিক একই সুযোগ রয়েছে বাংলাদেশের এই সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটায়।এখানে ভালোমানের অনেক হোটেল-মোটেল-রেস্টুরেন্ট হয়েছে।

মাদার ভেসেল নোঙ্গরের সুবিধাসহ চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরের চেয়েও আধুনিক মানের হিসেবে গড়ে তুলতে পায়রা সমুদ্র বন্দরের বিভিন্ন অংশের বাকি নির্মাণের কাজ চলছে পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের রাবনাবাদ চ্যানেলের সম্মুখে। চট্টগ্রাম এবং মংলা সমুদ্রবন্দরে মাদার ভেসেল থেকে পণ্য খালাস করতে হয় বহির্নোঙ্গরে। রাবনাবাদ চ্যানেল অনেক গভীর হওয়ায় পায়রা সমুদ্রবন্দরে সরাসরি পণ্য খালাস করতে পারবে মাদার ভেসেলগুলো। এতে পণ্য আমাদানি-রপ্তানিতে পরিবহন খরচ অনেক কমবে।

বরিশালে শিল্প কলকারখানা-গার্মেন্টস হয়েছে, যেখানে কম খরচে শ্রমিক পাওয়া যাবে, উৎপাদন ব্যয়ও কমবে। বন্দরে কনটেইনার টার্মিনাল, এলএনজি টার্মিনাল, বাল্কহেড টার্মিনাল, শিপইয়ার্ড, আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণসহ চলছে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ। সব কিছু মিলিয়ে আগামী কয়েক বছরে দক্ষিণাঞ্চল সিঙ্গাপুরের চেয়েও সমৃদ্ধ অর্থনৈতিক অঞ্চল হবে।

উচ্চশিক্ষার জন্য সরকারের গত মেয়াদে বরিশালে শুরু হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম। এখানে আছে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, আলাদা মহিলা ও পুরুষ টেকনিক্যাল ট্রেনিং কলেজ(টিটিসি), আছে মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। চালুর অপেক্ষায় আছে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ এবং মেরিন একাডেমি। প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ও। সব কিছু মিলিয়ে উচ্চশিক্ষার জন্য বরিশালেই রয়েছে সব ধরনের ব্যবস্থা।

অন্যদিকে বরিশালের পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় চলছে দেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল নেটওয়ার্কের কাজ। এছাড়া বরিশালে গড়ে উঠছে আইসিটি পার্ক (হাইটেক পার্ক), বঙ্গবন্ধু নভোথিয়েটার ও অর্থনৈতিক অঞ্চল। এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে অর্থনীতিতে ব্যাপক পরির্বতন আসবে বরিশালে।

বঙ্গোপসাগর মোহনার উপকূলীয় উপজেলা ভোলার চরফ্যাশনে ২০১২ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি স্থপতি কামরুজ্জামান লিটনের নকশায় জ্যাকব টাওয়ারের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে চরফ্যাশন পৌরসভার বাস্তবায়নে প্রায় ২০ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে এটি নির্মাণে, যার উদ্বোধন করেছেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ।

বরিশাল এখন আর কোন অবহেলিত জনপদ নয়। সরকারের বহুমুখী পরিকল্পনা আর দূরদর্শীতার এক অনন্য নজির এখন বরিশাল। প্রাচ্যের ভেনিস বরিশাল একসময় বাংলার অহংকার হবে এমনটাই প্রত্যাশা সবার।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

আখাউড়ানিউজ.কমে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, কপিরাইট আইন অনুযায়ী পূর্বানুমতি ছাড়া কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!