ব্রেকিং

x

আখাউড়া হাসপাতালে ডাক্তারদের অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনায় হুমকির মুখে পড়েছে স্বাস্থ্যসেবা।

বুধবার, ০৩ অক্টোবর ২০১৮ | ৮:১৮ অপরাহ্ণ | 1818 বার

আখাউড়া হাসপাতালে ডাক্তারদের অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনায় হুমকির মুখে পড়েছে স্বাস্থ্যসেবা।

ডাক্তার কর্মচারীদের নানা রকম অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনায় প্রায় ডুবতে বসেছে আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। শুধু আখাউড়া নয়, পার্শ্ববর্তী ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর ও বিজয়নগর উপজেলা এলাকার লক্ষাধিক মানুষের চিকিৎসাসেবার একমাত্র সরকারি প্রতিষ্ঠান এই হাসপাতাল। দিনের পর দিন সরকারি চিকিৎসক ও কর্মচারীদের স্বেচ্ছাচারিতার ফলে হুমকির মুখে পড়েছে এলাকার নিরীহ জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যসেবা।


tr


স্থানীয় কসবা-আখাউড়ার সংসদ সদস্য আইনমন্ত্রী এ্যাডভোকেট আনিসুল হকের প্রচেষ্টায় সাম্প্রতিককালে ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয় আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে। সরকারের সরবরাহকৃত ওষুধ পর্যাপ্ত, আধুনিক ভবন আছে, পর্যাপ্ত ডাক্তার আছেন, বেড আছে, নার্স আছেন, আছেন কর্মকর্তা ও কর্মচারী সবকিছুই। কিন্তু নেই শুধু উপযুক্ত চিকিৎসা।  কর্মরত তালিকায় থাকা ১০ জন ডাক্তারের মধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ছাড়া কেউ নিয়মিত অফিস আসছেন না। ডাক্তারদের মধ্যে কেউ মাসে একদিন, কেউ সপ্তাহে একদিন আবার কেউ কেউ সপ্তাহে দুইদিন আসছে।

ii

খোজ নিয়ে আরো জানাগেছে, ডা: আসাদুজ্জামান সাগর, ডা: শাহনাজ বেগম, ও ডা: সানজিদা আক্তার সপ্তাহে মাত্র একদিন অফিস করছে, ডা: নিয়ামুল হক, ডা: শাহনোয়াজ হাসান, ডাক্তার কাজী শাহরিয়ার বিন আজহার সপ্তাহে তিনদিন, ডা: আফ্রিদ জাহান ও ডা: রুহুল মোহছেন সুজন সপ্তাহে দুইদিন মাত্র অফিস করছেন।

শুধু তাই নয় সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২.৩০ পর্যন্ত সাড়ে ৬ ঘন্টা অফিস করার কথা থাকলেও ডাক্তার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত মাত্র ৩ ঘন্টা অফিস করছে।

খোজ নিয়ে আরো জানাগেছে, ডাক্তারদের পাশাপাশি টেকনিশিয়ান ও অন্যরাও নিয়মিত অফিস করছে না। মাত্র কয়েক ঘন্টা অফিস করে তারাও ডাক্তারদের সঙ্গে অফিস ফাকি দিয়ে চলে যাচ্ছে। এতে কিছু রোগী তাদেরকে না পেয়ে প্রাইভেট ক্লিনিকে ছুটছেন আবার গরিব অসহায় রোগীরা নিয়মিত ডাক্তার না পেয়ে চিকিৎসা ছাড়াই ফেরত চলে যাচ্ছেন। অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা বাসা বেঁধেছে এই হাসপাতালে। উপযুক্ত সেবা না পাওয়ায় চিকিৎসা প্রার্থীদের মধ্যে প্রায়ই ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে। ডাক্তার ও কর্মচারীদের এই অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা রোধে স্থানীয়রা আইনমন্ত্রী মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

আজ বুধবার সকাল ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরেজমিন খোজ নেয়ার সময় দেখাগেছে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা শফিউর রহমার ও ডা: নিয়ামুল হক নামে দুইজন ডাক্তার হাসপাতালে রয়েছেন। দুইজনের চেম্বারে রোগীর প্রচন্ড ভীড়। অন্যান্য ডাক্তাররা অফিসে নেই। কেউ কেউ সুযোগ না পেয়ে চলে যাচ্ছেন আবার কেউ কেউ প্রচন্ড ভীড়ের মধ্যেও দাড়িয়ে আছেন চিকিৎসা সেবা নিতে।

এ ব্যপারে আখাউড়া স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো: শফিউর রহমান জানান, ডাক্তাররা মাঝে মধ্যে আসছে না। যারা অফিস ফাকি দেয়ার চেষ্টা করছে তাদেরকে শোকজ করা হয়।

তিনি আরো বলেন, সকাল ১০টার আগে রোগীরাও আসতে চায়না। অনেক ডাক্তার আবার যোগাযোগ ব্যবস্থায় সময় ঠিক রাখতে পারছে না।

আখাউড়ানিউজ.কমে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, কপিরাইট আইন অনুযায়ী পূর্বানুমতি ছাড়া কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!