ব্রেকিং

x

আখাউড়া উত্তর ইউনিয়নে অর্ধশতাধিক মাদক ব্যবসায়ী সক্রিয়

রবিবার, ২৭ মে ২০১৮ | ৫:০৯ অপরাহ্ণ | 2395 বার

আখাউড়া উত্তর ইউনিয়নে অর্ধশতাধিক মাদক ব্যবসায়ী সক্রিয়
ছবি-অনলাইন

আখাউড়া উত্তর ইউনিয়নে অর্ধশতাধিক মাদক ব্যবসায়ী এখনো সক্রিয়। মাদক সম্রাট আমীর খা ক্রসফায়ারের পর শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীরা আত্মগোপনে রয়েছে। তবে মাদক ব্যবসা থেমে নেই। ইয়াবা, ফেন্সিডিল ও গাজার রমরমা ব্যবসা চলছে এখানে। আজ সরেজমিন খোজ নেয়ার সময় এই তথ্য জানাগেছে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, আখাউড়া উত্তর ইউনিয়নের আমোদাবাদ, রাজাপুর, আজমপুর, কল্যাণপুর, আনোয়ারপুর, করুয়াতলী, রামধননগর, চানপুর গ্রামে মাদক ব্যবসায়ীদের আস্থানা। এই সব আস্থানায় হাত বাড়ালেই ইয়াবা, ফেন্সিডিল ও গাজা মেলে।


তারা আরো জানায়, বিগত এক বছর আগে দুই শতাধিক মাদক ব্যবসায়ী স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে পুলিশের নিকট আত্মসর্মপন করে। তারপরও অর্ধশতাধিক মাদক ব্যবসায়ী উত্তর ইউনিয়নে রয়েগেছে। প্রভাবশালী একটি সিন্ডিকেটের মাধ্যমে মাদকের রমরমা ব্যবসা এখনো চলছে। অতিসম্প্রতি শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আমীর খা ক্রসফায়ারে নিহত হওয়ার পর কয়েকজন গডফাদার আত্মগোপনে চলেগেছে তবে আত্মগোপনে থাকলেও তাদের মাদক ব্যবসা থেমে নেই। আখাউড়ার বিভিন্ন সীমান্ত পথে ভারত থেকে মাদক প্রবেশ করছে উত্তর ইউনিয়নে।

এলাকার লোকজন জানায়, প্রায় প্রতিদিনই পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযান চলছে। অভিযানের সময় মাদক ব্যবসায়ীরা কিছুক্ষণ ঘাপটি মেরে থাকে আবার পুলিশ চলে গেলেই সক্রিয় হয়ে উঠে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন জানায়, উত্তর ইউনিয়নের আমোদাবাদ গ্রামের  সেলিম ও তার স্ত্রী, নিয়াজ, তাহের, সেজু, আনোয়ার, সফর, সাজু, আতিক, শামীম, রাজাপুরের মনু মেম্বার, খোকন, নাছির, জজ মিয়া, সাদ্দাম, নান্নু, শাহজাহানের তিন ছেলে, নায়েব আলীর দুই ছেলে, সোলমান, আজমপুরের আবিদের স্ত্রী, আমির আলীর স্ত্রী, রহিমের বউ, রাজ্জাক, হারিস ও হারিসের স্ত্রী, হিরা মিয়া, কসাই কাউছার, রামধননগের স্বপন, মোতালিবের পুত্র বাহার, চানপুরের কুদ্দুসের বউ, হানিফ, তারেক, রাজ্জাক মিয়া, রাব্বিল, রোকন, কল্যাণপুরের সাজু, নাছির, হোসেন, মারফত আলী, আনোয়ারের পুরের সাচ্চু ও কাজল, করুয়াতলীর মামুন, মইজ উদ্দিন, রনিসহ অর্ধশতাধিক মাদক ব্যবসায়ী এখন আখাউড়া উত্তর ইউনিয়নে সক্রিয়।

রামধননগরের আবু খা (৭৫) জানায়, মাদক ব্যবসায়ীদের পুলিশ ধরলে কিছুদিন পর ছাড়া পেয়ে আবার মাদক ব্যবসা শুরু করে। মাদক একটি বড় সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে উত্তর ইউনিয়নে। মাদক সেবন করতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থান থেকে যুবকরা এখানে ভীড় করছে। তিনি উত্তর ইউনিয়নকে মাদক মুক্ত করতে আইন শৃংখলা বাহিনীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

আখাউড়া উত্তর ইউনিয়নের  মেম্বার আব্দুস সাত্তার জানান, মাদক ব্যবসায়ীরা সবসময়ই সক্রিয় ছিল উত্তর ইউনিয়নে।প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কিছু বলা যায়না। যারা মাদকের বিরুদ্ধে বুলি ওয়াচ্ছে তারাই মাদকের গডফাদার। তিনি উত্তর ইউনিয়নকে মাদক মুক্ত করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

নাগরিক কমিটির আহবায়ক জামাল ভুইয়া জানান, মাদক প্রতিরোধে পুলিশের অভিযান চলছ কিন্তু মাদক ব্যবসা থেমে নেই। পুলিশ, বিজিবি আর স্থানীয় লোকজন সবাই জানে কে মাদক ব্যবসায়ী আর কে মাদকের গডফাদার। তিনি ও উত্তর ইউনিয়নকে মাদক মুক্ত কৃর্তপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

স্থানীয় উত্তর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান স্বপন জানায়, আখাউড়া উত্তর ইউনিয়নে শত শত মাদক ব্যবসায়ী ছিল। এক বছর আগে তার নেতৃত্বে ২২০ জন মাদক ব্যবসায়ী আত্মসর্মপন করে নতুন জীবনে চলেগেছে। বাকী যারা আছে তাদেরকে আটক করতে আইনশৃংখলা বাহিনীকে তিনি সহযোগীতা করছেন বলেও জানান।

এ ব্যাপারে আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন তরফদার জানান, মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি নিয়ে কাজ করছে পুলিশ। মাদক ব্যবসায়ী কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। আখাউড়া উপজেলাকে মাদক মুক্ত করতে পুলিশের বিশেষ অভিযান অব্যহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

আখাউড়ানিউজ.কমে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, কপিরাইট আইন অনুযায়ী পূর্বানুমতি ছাড়া কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!