ব্রেকিং

x

আখাউড়ায় ২৫ কোটি টাকার সড়ক উন্নয়ন কাজে অনিয়ম

মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ | ১১:১৭ অপরাহ্ণ | 1402 বার

আখাউড়ায় ২৫ কোটি টাকার সড়ক উন্নয়ন কাজে অনিয়ম
নিম্নমানের ইট তুলে নিচ্ছেন ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান

ধরখার-আখাউড়া-সেনারবাদি সড়কের ২৫ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। সড়ক প্রশস্থকরণ কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে অত্যন্ত নিম্নমানের মালামাল।নির্বাচনকালীন সময়ে এই ধরণের অনিয়ম এলাকার জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে। তবে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ বলছে সিডিউল অনুযায়ী কাজ চলছে। এর বেশি জানতে হলে সওজ প্রকৌশলীকে জিজ্ঞেস করতে হবে।


এদিকে আজ মঙ্গলবার আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামছুজ্জামান এই কাজের পরির্দশনের সময় এই অনিয়মের ঘটনা জনসম্মুখে প্রকাশ হয়। সড়ক প্রশস্থকারণ কাজে ব্যবহারকৃত সমস্ত নিম্নমানের ইট তাৎক্ষনিক তিনি তুলে নেয়ার নির্দেশ দেন ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে।
খোজ নেয়ার সময় স্থানীয়রা জানায়, গত ১২ অক্টোবর ধরখার-আখাউড়া-সেনারবাদি সড়কের প্রশস্থকরণ ও উন্নয়নে ২৫ কোটি টাকার কাজের উদ্বোধন করেন কসবা-আখাউড়া সংসদ সদস্য দেশের আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক এমপি। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী এই উন্নয়ন কাজ শুরু হয় ১৭ই অক্টোবর। শুরুতেই ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান সড়কের দুইপাশে প্রশস্থকরণ কাজ শুরু করে। ভ্যাকু দিয়ে মাটি কেটে রোলিং করার কথা থাকলেও তা না করে বালি ফেলে দেয়া হয় প্রশস্থকরণ কাজে। এই উন্নয়ন কাজে মাটি ধরা থাকলেও সড়কের মাটি এক পাশ থেকে অন্যপাশে নিয়ে জোড়তালি দেয়া হচ্ছে। আখাউড়া শহর এলাকায় প্রশস্থকরণ কাজে কংক্রিটের পরিমানের চেয়ে অন্তত দশগুণ বেশী বালি দেয়া হচ্ছে। জাঙ্গাল এলাকায় ডাইভারশন সড়ক না করেই ব্রীজের কাজ চলছে। এতে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়েগেছে। এজিন বা রাস্তার পাশে দেয়া হচ্ছে অত্যন্ত নিম্নমানের ইট।


এদিকে ফেসবুকসহ বিভিন্ন জায়গায় এই অনিয়মের খবর প্রকাশ পেলে প্রশাসনের টনক নড়ে। পরে আজ মঙ্গলবার বিকালে আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামছুজ্জামান এই সড়ক উন্নয়ন কাজ পরির্দশন করেন। এসময় তিনি সড়কের এজিনে বসানো নিম্নমানের ইট তুলে নেয়ার নির্দেশ দেন ঠিকাদারকে এবং সড়কের পাশে থাকা সমস্ত নিম্নমানের ইট সরিয়ে নিতে বলেন। পরির্দশনের সময় স্থানীয় লোকজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট সড়ক উন্নয়ন কাজের অনিয়ম তুলে ধরেন।
এসময় স্থানীয় কয়েকজন সাংবাদিকদের জানায়, নির্বাচনকালীন সময়ে সড়ক উন্নয়ন কাজে এই ধরণের অনিয়ম উদ্দেশ্যমূলক।
এ ব্যাপারে আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামছুজ্জামান বলেছেন, ধরখার-আখাউড়া-সেনারবাদি সড়ক উন্নয়নে যেসব নিম্নমানের ইট দেয়া হয়েছিল তা তুলে নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
তিনি আরো জানান, আগামীকাল বুধবার এ নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রকৌশলীর সাথে বৈঠক হবে। বর্তমান সরকারের আমলে এই কাজে অনিয়ম করতে দেয়া হবেনা বলেও তিনি জানিয়েছেন।

আখাউড়ানিউজ.কমে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, কপিরাইট আইন অনুযায়ী পূর্বানুমতি ছাড়া কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!