ব্রেকিং

x

আখাউড়ায় ব্যতিক্রম উদ্যোগ, ভয় নয়, টাকা দিয়ে অটোচালককে সরানো হলো সড়ক থেকে

বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০ | ৮:০০ অপরাহ্ণ | 1197 বার

আখাউড়ায় ব্যতিক্রম উদ্যোগ, ভয় নয়, টাকা দিয়ে অটোচালককে সরানো হলো সড়ক থেকে
আখাউড়ায় ব্যতিক্রম উদ্যোগ

হাতে ইশারা দিয়ে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা থামাতেই বার বার সরি বলতে লাগলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া পৌর এলাকার দুর্গাপুরের অটোচালক জিতু মোল্লা। নাম ঠিকানা জানতে চাইলে এসব না বলে আর বের হবেন না জানান। এরই মধ্যে উদ্যোক্তারা তাঁকে টাকা দিয়ে সহযোগিতা করবে শুনে অবাক হন। অন্তত একদিন তিনি অটো চালাবেন না বলে টাকা পেয়ে অঙ্গীকার করেছেন বলে জানান।


হাতজোড় করে বারবার ক্ষমা চাইতে লাগলেন মিলন মিয়া। ৫০ উর্ধ্ব ওই ব্যক্তি বলতে লাগলেন, ‘স্যার চলতে কষ্ট অইতাছে দেইক্কা বাইর অইছলাম। আমি আর চালাইতাম না। স্যার আমার মাফ কইরা দেন।’ নাম, ঠিকানা জানতে চাইলে মন খারাপ করে মাথা নীচু করে বসে রইলেন।


সামনে বিস্তারিত খোলে বলার পর মিলন মিয়ার মুখে যেন রাজ্যের হাসি। কথা দিলেন অন্তত একদিন অটোরিকশা নিয়ে বের হবেন না। হাতে নগদ তিনশ’ টাকা পেয়ে যেন মেঘ না চাইতেই বৃষ্টি। বলতে লাগলেন এখনই তাঁর বাড়ি চলে যাবেন।

ভয় দেখিয়ে নয়, গ্যাস ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালকদের এভাবেই নগদ টাকা দিয়ে সড়কে না আসার জন্য আহবান জানানো হলো। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় ‘আমরা ৯৫’ নামে একটি সংগঠন এ ধরণের উদ্যোগ নেয়।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে বিকেল নাগাদ ২৫ জন চালককে এভাবে সড়ক থেকে সরানো হয়। টাকা পেয়ে প্রত্যেকেই কথা দিয়ে যান অন্তত একদিনের জন্য ঘর থেকে বের হবেন না। আর্থিক সহায়তার সময় প্রত্যেকের ঠিকানা ও মোবাইল ফোন নম্বর রেখে দেয়া হয়।

ব্যতিক্রম এ আয়োজনে বিভিন্ন সময়ে অংশ নেন, আখাউড়া পৌরসভার মেয়র মো. তাকজিল খলিফা কাজল, পৌর সচিব মো. ফারুক, ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মন্তাজ মিয়া, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা শ্যামল চক্রবর্তী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য দীপক কুমার ঘোষ, পৌর যুবলীগের সভাপতি মো. মনির খান, প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি জুটন বনিক, কালের কণ্ঠের ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি বিশ্বজিৎ পাল বাবু, রক্তদানের সংগঠন আত্মীয়ের প্রতিষ্ঠাতা সমীর চক্রবর্তী, যুবলীগের সদস্য রাজেশ সাহা, আমরা ৯৫ এর সদস্য জীবন চৌহান প্রমুখ। প্রত্যেকই এ উদ্যোগের প্রশংসা করেন।

উদ্যোক্তারা জানান, চালকদের সঙ্গে আলাপ করে তাঁর আয়ের ও চাহিদার সঙ্গে সমন্বয় রেখে প্রত্যেককে তিন থেকে পাঁচশ’ টাকা দেয়া হয়। এ কার্যক্রম চলমান থাকবে। সংগঠনটির উদ্যোগে এর আগে দরিদ্রদেরকে কার্ড দেয়া হয় নিজের পছন্দমতো ৫০০ টাকার কেনাকাটার করার জন্য। প্রবাসী মো. মোমেন, মোফাজ্জল হোসেন, ফারহানা মণিকা, শাখাওয়াত, পলাশ সাহা, দেশে থাকা নওশাদ খান, মিয়া মো. মিলন, বশির চৌধুরী, বকুল, পলাশ, ইয়াছিন চৌধুরী, ফোরকানসহ আরো অনেকে এ কাজের সহায়তা করছেন।

এ উদ্যোগের সমন্বয়কারি সাংবাদিক বিশ্বজিৎ পাল বাবু জানান, মূলত দুইটি উদ্দেশ্য নিয়ে এ কাজটি করা হয়েছে। প্রথমত, অর্থাভাবে থাকা চালকদেরকে সহায়তা করা ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে গণপরিবহন নিয়ে বের না হওয়া। আর্থিক সহযোগিতা পেয়ে চালকরা আশ্বস্থ করেছেন যে অন্তত একদিনের জন্য তিনি বের হবেন না। এমনিতেই সড়কে গণপরিবহন কম। এ প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখা গেলে ভালো সুফল পাওয়া যাবে বলে আশাবাদী।

আখাউড়ানিউজ.কমে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, কপিরাইট আইন অনুযায়ী পূর্বানুমতি ছাড়া কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!