ব্রেকিং

x

আখাউড়ায় নুরপুর নিহত কামরুলের বাড়িতে শোকের মাতম চলছে।

শুক্রবার, ০৪ মে ২০১৮ | ১:৩৬ অপরাহ্ণ | 2200 বার

আখাউড়ায় নুরপুর নিহত কামরুলের বাড়িতে শোকের মাতম চলছে।
নসু মিয়া স্থানীয় চেয়ারম্যানকে ধরে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। পাশে রাস্তায় পুলিশ মোতায়েন

আখাউড়া নুরপুর গ্রামের অত্যন্ত গরিব অসহায় কৃষক নসু মিয়া (৫০)। নুরপুরের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের সময় প্রতিপক্ষের লোকজন নির্দয়ভাবে কুপিয়েছে নসুর দুই ছেলেকেই। দুই ছেলের মধ্যে ঢাকা মেডিক্যালে গতকাল বৃহস্প্রতিবার দুপুরে কামরুলের মৃত্যু হয়েছে। ইকবালের অবস্থাও আশংকাজনক। কামরুল হীরাপুর হাই স্কুলের ৯ম শ্রেণীর ছাত্র। ইকবাল অটোরিক্সা চালায়। দুই পুত্র সন্তানের মধ্যে নসু মিয়ার অনেক আশা ভরসার সন্তান ছিল নিহত কামরুল। বেশ জ্ঞান বুদ্ধিও ছিল ছেলেটির। এই ছেলেটাকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করে নসু মিয়ার সব আশা ভরসা স্বপ্ন মাটিতে মিশিয়ে দিল অভিযুক্ত খুনিরা। এই শোক কাটিয়ে উঠতে পারবে না এই অসহায় পরিবারটি। আজ সকালে সরেজমিন খোজ নেয়ার সময় নসু মিয়ার সাথে কথা বলে তা জানাগেছে।


l1


 কামরুলের বড় ভাই ইকবাল। তার সারা মাথায় সেলাই করা হয়েছে।

এদিকে আজ সকাল ৭টায় কামরুলের লাশ গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে রাতে ঢাকা থেকে নুরপুর গ্রামে কামরুলের লাশ পৌছলে আত্মীয় স্বজন কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। স্বজন হারানোর বেদনায় নসুর বাড়িতে কান্নার রোল পড়েছে। আজ সকাল ১০টায় নসুর বাড়িতে গিয়ে দেখাগেছে  আত্মীয় স্বজন, শুভাকাঙ্খী ও এলাকাবাসীর ভীড় জমেছে সমবেদনা জানাতে। কামরুলের মা, বাবা, বোনেরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়ছেন। পুরো গ্রাম জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

l

নিহত কামরুলের বাড়ি

নিহত কামরুলের মা জানায়, তার দুই পুত্র সন্তানের মধ্যে ছোট ছেলে কামরুলকে কুপিয়ে হত্যা করা হল বিনা অপরাধে। বড় ছেলে ইকবালকেও কুপিয়ে গুরুত্বর আহত করা হয়েছে। তার অবস্থাও আশংকাজনক। তিনি কি নিয়ে বেচে থাকবেন বলেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়ছেন।

কামরুলের চাচাতো ভাই উজ্জ্বল জানায়, বুধবার সকালে তুচ্ছ ঘটনায় তাকে মারধর করছিল খুনিরা। তা দেখে কামরুল ও ইকবাল দৌড়ে গিয়েছিল খুনিদের কবল থেকে উজ্জ্বলকে বাচাতে কিন্তু খুনিরা বিনাঅপরাধে তাদের দুই ভাইকে উপর্যপরী কুপিয়েছে।

সরেজমিন খোজ নেয়ার সময় দেখাগেছে কামরুলের বাড়ির সামনে রাস্তায় পুলিশের লোকজন বসে আছে। কর্তব্যরত এসআই জসিম জানায়, গ্রামের পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। খুনিদের গ্রেফতার করতে পুলিশের অভিযান চলছে।

স্থানীয় দক্ষিন ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো: জালাল উদ্দিন জানায়, কামরুল হত্যাকান্ডে নসু মিয়ার অসহায় পরিবারটি ধ্বংস হয়েগেছে। অনেক স্বপ্ন নিয়ে ছেলেটা পড়াশুনার পাশাপাশি বাবার কাজে সবসময় সহযোগীতা করে আসছিল। তিনি খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেছেন।

উল্লেখ্য যে, গত বুধবার তুচ্ছ ঘটনায় আখাউড়া নুরপুর গ্রামের জজ মিয়ার বাড়ির লোকজন নসু মিয়ার দুই ছেলে কামরুল ও ইকবালসহ বাড়ির সবার উপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এই ঘটনায় আহত হয় ১০ জন। গতকাল বৃহস্প্রতিবার কামরুল ঢাকা মেডিক্যালে মৃত্যু বরণ করে। এই খুনের ঘটনায় পুলিশ ৩জন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।

আখাউড়ানিউজ.কমে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, কপিরাইট আইন অনুযায়ী পূর্বানুমতি ছাড়া কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!