ব্রেকিং

x

আখাউড়ায় করোনা প্রকোপের মধ্যে মানুষকে দুর্বিষহ করে তুলছে বিদ্যুতের অব্যহত লোডশেডিং

বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০ | ১:২৯ অপরাহ্ণ | 1136 বার

আখাউড়ায় করোনা প্রকোপের মধ্যে মানুষকে দুর্বিষহ করে তুলছে বিদ্যুতের অব্যহত লোডশেডিং
akhauranews.com

আখাউড়ায় করোনাভাইরাসের প্রকোপের মধ্যে মানুষ ঘরেই থাকছে সারাদিন কিন্তু ঘরে থাকাকে দুর্বিষহ করে তুলছে বিদ্যুতের অব্যহত লোডশেডিং। পৌরসভাসহ উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে প্রচন্ড তাপদাহের মধ্যে ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুত থাকছে না।


গ্রামাঞ্চলের লোকজন অভিযোগ করেছেন, প্রতিদিন কয়েকবার লোডসেডিং দেয়া হচ্ছে। করোনা পরিস্থিতিতে বাসায় অবস্থানের সময় এই ভোগান্তি মেনে নিতে পারছেন না তারা কিন্তু পল্লী বিদ্যুত সমিতি বলছে বিদ্যুতের কোন ঘাটতি নেই, লোডসেডিং দেয়া হয়না। যান্ত্রিক ত্রুটি ও লাইন মেরামতের জন্য মাঝে মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে বিদ্যুত বন্ধ রাখা হয়।


আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ যুবরাজ শাহ রাসেল গতকাল তার ফেসবুক সময়ক্রমে লিখেছেন, আখাউড়া উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়িত ঘোষণা করা হলেও বর্তমানে বিনা কারণে বারবার লোডসেডিং দেয়া হচ্ছে। তিনি পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএমকে প্রত্যাহারসহ আখাউড়াকে লোডসেডিং মুক্ত করতে আইনমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

মনিয়ন্দ গ্রামের রিয়াদ চৌধুরী জানায়, প্রচন্ড তাপতাহ বইছে। গরমে অতিষ্ঠ হয়েগেছে মানুষ তার মধ্যেও তাদের মনিয়ন্দ ইউনিয়নে প্রতিদিন কমপক্ষে পাচবার লোডসেডিং দেয়া হচ্ছে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে মানুষকে ঘরে থাকার কথা বলা হচ্ছে কিন্তু বিদ্যুতের লোডসেডিং এর জন্য ঘর থেকে বাধ্য হয়ে বাইরে আসতে হচ্ছে। অনেকে গরমের যন্ত্রনায় হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে বের হয়ে যাচ্ছে। তিনি করোনা পরিস্থিতিতে বিদ্যুতের লোডসেডিং বন্ধের আহবান জানিয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

মোগড়া বাজারের রতন পারভেজ (সাংবাদিক) জানায়, তাদের ইউনিয়নে বিদ্যুত বিপর্যয়ের কারণে মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় বিদ্যুতের লোডসেডিং দেয়া হয়েছে কিন্তু এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দুপুর ১টা পর্যন্ত বিদ্যুতের দেখা পায়নি মোগড়াবাসী। করোনাভাইরাসের চেয়ে বেশী বিদ্যুত আতংকে ভোগছে মানুষ।

আখাউড়া দক্ষিণ ইউনিয়ন থেকে দ্বীন ইসলাম (সাংবাদিক) জানায়, আখাউড়া দক্ষিন ইউনিয়নে আরো করুন পরিস্থিতি বিরাজ করছে। প্রতিদিন দুপুর ২টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ২ ঘন্টা এবং দিবাগত রাত ৩টা থেকে ভোড় পর্যন্ত এখানে নিয়মিত বিদ্যুতের লোডসেডিং দেয়া হচ্ছে। প্রচন্ড গরম আর করোনা পরিস্থিতি মিলিয়ে মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছেন বলেও তিনি জানিয়েছেন।

আখাউড়া ধরখার ইউনিয়নের ঘোলখার গ্রামের দুলাল ভুইয়া জানায়, তাদের ধরখার ইউনিয়নেও বিদ্যুতের চরম বিপর্যয় নেমে এসেছে। একবার বিদ্যুত চলে গেলে কয়েক ঘন্টা আসেনা। মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।

আখাউড়া উত্তর ইউনিযনের চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান স্বপন জানায়, তার ইউনিয়নে অব্যহত লোডসেডিং চলছে। মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে। বিদ্যুতের লোডসেডিং এর সময় গরমের যন্ত্রনায় মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়ছে।

সাধারন গ্রাহকদের সাথে কথা বলার সময় তারা জানিয়েছেন, আখাউড়াকে শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা ঘোষণার পর বেশ কিছুদিন বিদ্যুত নিয়ে কোন সমস্যা ছিলনা কিন্তু বর্তমান ডিজিএম যোগদানের পর বিদ্যুতের চরম বিপর্যয় ঘটেছে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে মানুষকে ঘরে থাকার কথা বলছে সরকার কিন্তু বিদ্যুতের বিষয়ে সরকার পদক্ষেপ নিচ্ছে না। এই গরমে বিদ্যুতের অব্যাহত লোডসেডিং বন্ধ না হলে মানুষের ঘরে থাকা অনেক কষ্ট হয়ে পড়বে তাই সকলে বিদ্যুতের লোডসেডিং বন্ধে আইনমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

আখাউড়া পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম আবুল বাশার বলেছেন, আখাউড়ায় নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুত দেয়ার জন্য উন্নয়ন কাজ চলছে, কাজের সময়টাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে বিদ্যুত লাইন বন্ধ রাখা হয়। এছাড়া লাইনসহ বিভিন্ন যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য লাইন বন্ধ করে ত্রুটি মেরামত করা হয়। আখাউড়ায় কোন লোডসেডিং নেই বলেও তিনি জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহমিনা আক্তার রেইনা জানান, বিদ্যুতের কোন ঘাটতি নেই। উন্নয় কাজের জন্য মাঝে মধ্যে বিদ্যুত বন্ধ রাখা হয়। বর্তমান অবস্থায় নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুত সরবরাহের জন্য কর্তৃপক্ষকে সাবধান করে দেয়া হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

আখাউড়ানিউজ.কমে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, কপিরাইট আইন অনুযায়ী পূর্বানুমতি ছাড়া কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!