ব্রেকিং

x

আখাউড়ায় করোনার নমুনা সংগ্রহ করছেন হাসপাতালের পিয়ন, ট্যাকনেশিয়ানকে শোকজ

সোমবার, ২০ এপ্রিল ২০২০ | ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ | 421 বার

আখাউড়ায় করোনার নমুনা সংগ্রহ করছেন হাসপাতালের পিয়ন, ট্যাকনেশিয়ানকে শোকজ
নাসির উদ্দিন

আখাউড়ায় করোনার নমুনা সংগ্রহ করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন অফিস সহায়ক (পিয়ন)! সংগ্রহ করা নমুনার প্রায় ৮০ শতাংশ তিনি নিয়েছেন। যদিও এ বিষয়ে ওনার কোনো ধরণের প্রশিক্ষণ নেই। ফলে নমুনা সংগ্রহ নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। যদিও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রাশেদুর রহমানকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে ক্ষেপে যান।


গতকাল রবিবার রাত নয়টার দিকে ওনার মোবাইল ফোনে কল করা হলে বলেন, ‘কাকে দিয়ে নমুনা সংগ্রহ করাবো না করাবো তা জেনে আপনার লাভ কি?’ একজন সংবাদ কর্মী হিসেবে জানতে চাওয়া বললে তিনি বলেন, ‘অন্য কোনো কথা থাকলে আপনি বলতে পারেন।’ এভাবে নমুনা সংগ্রহে ঝুকি আছে কি-না ও এমন রূপ আচরণ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ফোন কেটে দেন।


খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আখাউড়া থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ১০০ জনের মতো নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। নিময় অনুসারে শুরুতে নমুনা সংগ্রহ করেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ল্যাব ট্যাকনেশিয়ান মো. মনির খান। নমুনা সংগ্রহের বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে তিনি প্রশিক্ষণও নেন। তবে তিনি এক পর্যায়ে অপারগতা প্রকাশ ও অসুস্থতাবোধের কথা জানান। এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে তিনি নমুনা সংগ্রহ করছেন না। তাঁর বদলে অফিস সহায়ক (পিয়ন) নাসির উদ্দিন নয়নকে নমুনা সংগ্রহের দায়িত্ব দেয়া হয়। নাসির উদ্দিন প্রায় ৮০ টির মতো নমুনা সংগ্রহ করেছেন। তবে এ কাজে ভয়ে হাসপাতাল সংশ্লিষ্ট অন্যরা তাঁকে খুব একটা সহায়তা করেন না।

কথা হলে অফিস সহায়ক নাসির উদ্দিন জানান, আমি না করা ছাড়া তো কোনো উপায় নেই। আমাকে দেখিয়ে দেয়ার পর থেকে ভালোভাবেই কাজ করছি। আমার কোনো সমস্যা হচ্ছে না। নমুনা সংগ্রহ করার জন্য পিপিইসহ আনুষাঙ্গিক সব দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।
অফিস সহায়কের মাধ্যমে নমুনা সংগ্রহের বিষয়টি শুনে অবাক হয়ে যান আখাউড়া পৌরসভার মেয়র মো. তাকজিল খলিফা কাজল। রাত সোয়া ১০টার দিকে কথা হলে তিনি বলেন, ‘প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য এ বিষয়ে সিভিল সার্জনের সঙ্গে কথা বলবো।’

আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) তাহমিনা আক্তার রেইনা বলেন, ‘যতটুকু জানি ট্যাকনেশিয়ানকে শোকজ করা হয়েছে। আপাতত তাঁর বদলে অন্য একজনকে দিয়ে কাজ চালানো হচ্ছে। এ বিষয়ে আমি আবারো সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলবো।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন ডা. মো. একরাম উল্লাহ বিষয়টি অনেকটা এড়িয়ে যান। তিনি বলেন, ‘আখাউড়ায় ট্যাকনেশিয়ান আছে কি-না জানতে হবে। যদি থাকে তাহলে তো তাঁরই নমুনা সংগ্রহ করার কথা। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখা হবে।’

আখাউড়ানিউজ.কমে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও চিত্র, কপিরাইট আইন অনুযায়ী পূর্বানুমতি ছাড়া কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!